Ads Top

নতুন প্রজন্মের যে গেইমিং প্রযুক্তিগুলো আপনার মাথা ঘুরিয়ে দিবে

নতুন প্রযুক্তির ভার্চুয়াল রিয়ালিটির ট্রেডমিল বা ভিআর ফ্রি মোশন কন্ট্রোলার এই পর্বে থাকছে যে নতুন প্রযুক্তিগুলো গেইমিংকে নিয়ে গেছে নতুন মাত্রায়।

নতুন প্রজন্মের যে গেইমিং প্রযুক্তিগুলো আপনার মাথা ঘুরিয়ে দিবে


গেমো
গেইমিং এর জন্য যুগান্তকারী ইয়ারফোন বলা যেতে পারে নতুন প্রযুক্তির গেমোকে। কারণ প্রথম এই ইয়ারফোনে ব্যবহার করা হয়েছে থ্রিডি সারাউন্ড সাউন্ড প্রযুক্তি। যদিও অনেক হেডফোন বা ইয়ারফোনে সারাউন্ড সাউন্ড প্রযুক্তি রয়েছে, কিন্তু গেমো গেইমারকে দিবে সম্পূর্ণ নতুন একটি অনুভূতি। পায়ের আওয়াজ, বিস্ফোরণ বা গুলিসহ নানা ধরনের অ্যামবিয়েন্স সাউন্ড আলাদা আলাদা করে সনাক্তই শুধু নয়, এই ইয়ারফোন দিবে ক্রিস্টাল ক্লিয়ার অডিও। শুধু গেইমই নয়, এই ইয়ারফোন দিয়ে থ্রিডি মুভি বা গানও শোনা যাবে আর এটি ব্যবহার করা যাবে যে কোনো ধরনের ডিভাইসে। গেমো ইয়ারফোন কিনতে আপনাকে খরচ করতে হবে মাত্র ৫৪ মার্কিন ডলার।

সেন্সরিক্স
ভার্চুয়াল রিয়ালিটির জগতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে সেন্সরিক্স নামের এই ভিআর ফ্রি মোশন কন্টোলারটি। এটি আসলে বিশেষভাবে তৈরি গ্লভস যা দিয়ে ভার্চুয়াল রিয়ালিটির গেইম খেলা বা অ্যাপস ব্যবহার করা যাবে শুধুমাত্র হাতের আঙ্গুল নারাচাড়ার মাধ্যমে। তারবিহীন এই গ্লভসে ১৯০ ডিগ্রি পর্যন্ত ফিল্ড অব অপারেশন পাওয়া যাবে এবং এটি মোটামোটি সবগুলো ভিআর সিস্টেমের সাথে ব্যবহার করা যাবে। আর এই গ্যাজেট ভার্চুয়াল রিয়ালিটির অ্যাপ বা সঙ্গীত সাধনা এমনকি নকশা তৈরি বা গবেষণার কাজেও নতুন সম্ভাবনা তৈরি করেছে। সেন্সরিক্সের দাম ধরা হয়েছে মাত্র ৩০০ মার্কিন ডলার।

বিকন
গেইমিং এ দ্রুততম সময়ে বিভিন্ন অপশন ব্যবহার করতে আপনার হাতের আঙ্গুলগুলো যদি পর্যাপ্ত না হয় তবে আপনার জন্য সমাধান হতে পারে নতুন প্রযুক্তির ওয়্যারেবল কন্ট্রোলার বিকনপায়ের সাথে খুব সহজে লাগিয়ে নেয়া যাবে এই কন্ট্রোলারটি এবং কোনো ধরনের ড্রাইভার ইন্সটলেশন ছাড়াই এটি কাজ করবে কিবোর্ডের মতো এবং পায়ের সামান্য নড়াচড়ার মাধ্যমে এটি দিয়ে খেলা যাবে যে কোনো ধরনের গেইম এবং দেয়া যাবে বহু ধরনের কমান্ড। এছাড়া এটি দিয়ে যে কোনো ক্রিয়েটিভ সফটওয়্যারও ব্যবহার করা যাবে খুব সহজে। আর এর দাম শুরু ৮০ মার্কিন ডলার থেকে।

সাইবারিথ ভার্চুয়ালাইজার
বর্তমান ভার্চুয়াল রিয়ালিটির গেইমিং এ অবিশ্বাস্য একটি প্রযুক্তিই বলা যায় সাইবারিথ ভার্চুয়ালাইজারকে। কারণ গেইমিং এর জন্য এখানে আপনাকে ব্যবহার করতে হবে পুরো শরীর। খুব সহজে যে কোনো জায়গায় বসানো যাবে এই ভার্চুয়াল রিয়ালিটির ট্রেডমিল। আর এখানে হাটা, দৌড়ানো, লাফানো বা হাত ব্যবহার করে ভার্চুয়াল রিয়েলিটর গেইম খেলতে পারবেন। স্টিল এবং অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই ভিআর লোকোমোশন প্লাটফর্মটি। আর এর দাম ধরা হয়েছে ৭৫০ মার্কিন ডলার।

রেইসিং কিউব
ড্যানিশ কোম্পানি ফেইস টেক নিয়ে এসেছে দুর্দান্ত এই রেইসিং সিম্যুলেটর রেইসিং কিউব। রেইসিং গেইম, বিমান বা হেলিকপ্টার সিম্যুলেটর হিসেবেই শুধু নয়, ভিআর হেডসেট যুক্ত করে অভাবনীয় গেইমিং এর অভিজ্ঞতা দিবে রেইসিং কিউব। আর এই হাই পারফরম্যান্স মোশন প্লাটফর্মটি খুবই অল্প দামে ক্রেতাদের কাছে পৌছে দিচ্ছে ফেইস টেক। ২০১৪ সালে প্রকল্পটি হাতে নেয়ার পর ২০১৫ সালে তৈরি করা হয় প্রথম প্রোটোটাইপ। আর বর্তমানে কোম্পানির ওয়েবসাইট থেকে এই সিম্যুলেটরটি কেনা যাবে যার দাম পড়বে অন্তত ৬ হাজার ৮শ মার্কিন ডলার। সিম টুলস টু প্রফেশনাল সফটওয়্যার ইনস্টল করে চালাতে হবে এই সিম্যুলেটর। ৩টি দ্রুতগতিসম্পন্ন আরসিথ্রি সার্ভো অ্যাকচুয়েটর এবং ৩৬০ ডিগ্রি রোটেশন সক্ষমতা দিবে গাড়ি চালানোর সত্যিকারের অভিজ্ঞতা।

© 2015-2019 All Rights Reserved. Powered by Blogger.